বিতর্ক প্রতিযোগিতার স্ক্রিপ্ট লেখার নিয়ম

 বিতর্ক প্রতিযোগিতার স্ক্রিপ্ট লেখার নিয়ম


বিতর্ক প্রতিযোগিতার স্ক্রিপ্ট লেখার নিয়ম এবং কিভাবে ভালো বিতর্ক শুরু করা যায় অনেকেই জানেন না। অথবা অনেকে জানতে চান কিন্তু যথাযথ কোনো জায়গা নেই। আশা করি এখান থেকে আজ আপনি সর্বোচ্চটা নিয়ে যেতে পারবেন। বিতর্ক প্রতিযোগিতা একটি মনোনয়নের বাক্তব্যের প্রতিপাদ্য তত্ত্বের উপর ভিত্তি করে পরস্পরের বিপক্ষে যুক্তি পেশ করার একটি উপায়। এই প্রতিযোগিতা সম্প্রদায়ে বা শিক্ষায় ব্যবহৃত হয় যাতে সাধারণত অন্যদের বিচারধারা পরীক্ষা করা যায় এবং যথার্থ প্রমাণ সাবলে নিজের মনোনয়নকে সমর্থন করা যায়।


বিতর্ক প্রতিযোগিতার স্ক্রিপ্ট লেখার নিয়ম - কিভাবে ভালো বিতর্ক শুরু করা যায় ২০২৩



বিতর্ক প্রতিযোগিতার জন্য স্ক্রিপ্ট লেখার নিয়মগুলি নিম্নরূপ:


১. স্ক্রিপ্টের শুরুতে লিখুন প্রতিযোগিতার নাম এবং তারিখ।

উদাহরণঃ “বিতর্ক প্রতিযোগিতা – ২০২৩ সালের ১০ ইউনি”

২. লিখুন প্রতিযোগিতার নিয়মাবলী বা নির্দেশিকা। এই নিয়মাবলীতে থাকা উপায়গুলি যেমন পার্থক্যভূক্ত কথা, আলোচ্য বিষয়, যুক্তিসম্পন্ন পেশ করার নির্দেশনা, সময়সূচী ইত্যাদি দিয়ে বর্ণনা দিন।

উদাহরণঃসময়: প্রতিযোগিতার সময় সকাল ১০:০০ টা থেকে বিকাল ৩:০০ টা পর্যন্ত।


পার্থক্যভূক্ত কথা: প্রতিযোগিতায় প্রদত্ত বিষয়ের উপর বিভিন্ন মন্তব্য, বিচারধারা এবং প্রমাণ বিষয়ে অভিযোগ করা যাবে।

পেশের উপায়: সম্প্রদায়ে ব্যবহৃত যুক্তিগুলি ব্যবহার করে মন্তব্য প্রদান করা যাবে। সমর্থনের জন্য সঠিক যুক্তি, প্রমাণ ও পূর্বপরবর্তী মন্তব্যগুলির পর্যালোচনা করা হবে।
আলোচ্য বিষয়: প্রতিযোগিতায় আলোচ্য বিষয়ের সীমাবদ্ধতা এবং বিষয়ের পরিমাণ নির্ধারণ করা হবে।

*** গুগল নিউজে আমাদের ফলো করুন “নিজের আইটি বিডি

৩. প্রতিযোগিতার ফরম্যাট নির্ধারণ করুন। উদাহরণস্বরূপ, একজন প্রদত্ত সময়ে মন্তব্য করার জন্য অনুমোদিত সময় সীমা সেট করুন। অন্য অংশগুলি যেমন বক্তৃতা সংখ্যা, প্রতিপাদ্য সংখ্যা, সময়সূচী ইত্যাদি যেমন প্রতিযোগিতার ফরম্যাটে উল্লেখ করুন।

See also  বিতর্ক প্রতিযোগিতার বিষয় তথ্য প্রযুক্তি ২০২৩ - শিক্ষা ক্ষেত্রে তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহার

উদাহরণঃপ্রতিপাদ্য সংখ্যা: প্রতিপাদ্য সংখ্যা ৩ হতে শুরু করে ১০ পর্যন্ত।


বক্তৃতা সংখ্যা: প্রতিপাদ্য করার জন্য সকাল ১০:০০ টা থেকে ২ মিনিটে ১ মিনিটে একজন বক্তা পাওয়া যাবে।

সময়সূচী: প্রতিযোগিতার প্রতিপাদ্য জন্য নির্ধারিত সময় সীমা সকাল ১০:০০ টা থেকে ১০:৩০ টা।

বিচারধারা বিপক্ষের জন্য: প্রতিপাদ্য পরে প্রতিপাদক পর্যালোচনা করবেন। প্রতিপাদ্যকে আলোচনা করার পরে প্রতিপাদকের উত্তর প্রদান করতে হবে।

৪. স্ক্রিপ্টে অনুসরণ করতে হবে প্রতিযোগিতার সময়সূচী। এই সময়সূচীতে অন্তর্ভুক্ত থাকবে যুক্তি প্রতিযোগিতার প্রতিয়োগীদের উত্তরের প্রদানের জন্য কতক্ষণ সময় দেওয়া হবে।

উদাহরণঃপ্রতিযোগিতার সময়সূচী: প্রতিযোগিতায় প্রতিয়োগীদের উত্তর দেওয়ার জন্য ২ মিনিটের সময় দেওয়া হবে। এরপর প্রতিপাদককে প্রতিতাদের উত্তর প্রদান করতে হবে।

৫. স্ক্রিপ্টের শেষে লিখুন সমাপ্তির বার্তা এবং উদ্যোগের প্রশংসা।

উদাহরণঃ “এই প্রতিযোগিতার জন্য ধন্যবাদ এবং সকলেরকে অভিনন্দন যারা অংশগ্রহণ করেছেন। আশা করছি আপনারা এই প্রতিযোগিতায় সম্পূর্ণরূপে উপভোগ করেছেন।”



কিভাবে ভালো বিতর্ক শুরু করা যায়


একটি ভালো বিতর্ক শুরু করার জন্য নিম্নলিখিত কিছু নির্দেশাবলী অনুসরণ করতে পারেন:

১. বিষয় নির্বাচন করুন: একটি বিষয় বাছাই করুন যা আপনার এবং আপনার বিচারধারার জন্য আকর্ষণীয় এবং আলোচ্য হয়। নির্বাচিত বিষয়টি পর্যালোচনা করার জন্য যথাসাধ্য তথ্য এবং তত্ত্বগুলি সমগ্রভাবে বুঝতে আপনার পাশে থাকতে হবে।

২. তত্ত্বগুলি অধ্যয়ন করুন: নির্বাচিত বিষয়ে সম্ভাব্য তত্ত্বগুলি অধ্যয়ন করুন। সাধারণত বই, পড়াশোনা বাহিনী, মতামতগুলি বা সংবাদপত্রের মাধ্যমে প্রাপ্ত তথ্য ব্যবহার করুন। এটি আপনাকে সমর্থন করবে যদি প্রতিপাদ্য বিচারধারাকে আরও প্রমাণ ও প্রমাণাদি সরবরাহ করতে হয়।

৩. লক্ষ্য নির্ধারণ করুন: আপনার বিতর্কের লক্ষ্য নির্ধারণ করুন। কী বিষয়ে আপনি আলোচনা করতে চান, কী মতামত সমর্থন করতে চান এবং আপনি কী উপায়ে আপনার মন্তব্যগুলি প্রমাণ করতে চান তা ধারণা করুন।

৪. ব্যাখ্যা দিন: আপনার মন্তব্যের মাধ্যমে আপনার দৃষ্টিভঙ্গি ব্যাখ্যা দিন। আপনার বিচারধারাকে কিভাবে বুঝাতে চান তা নির্দিষ্ট করুন এবং এর সমর্থনের জন্য যুক্তি, প্রমাণ এবং উদাহরণ ব্যবহার করুন।

See also  বাংলালিংক ইন্টারনেট অফার ২০২৩ - বাংলালিংক এমবি অফার কোড

৫. সহযোগিতা ও শ্রদ্ধা প্রদর্শন করুন: আপনার বিতর্কে সহযোগিতা ও শ্রদ্ধা প্রদর্শন করুন। বিপক্ষের মতামতগুলি সংশোধন করুন, মন্তব্যগুলির প্রমাণ বা উদাহরণ উল্লেখ করুন এবং তাদের বিচারধারাকে মর্যাদা দিন। পরিবেশনার সময় শিষ্টাচার এবং সভ্যতা বজায় রাখুন।

৬. মন্তব্যগুলির পর্যালোচনা করুন: বিপক্ষের মন্তব্যগুলি পর্যালোচনা করুন এবং প্রশ্ন করুন যেমন তারা কেন তাদের মতামত বিশ্বাস করে, তাদের প্রমাণ কী, এবং তারা কী তথ্য বা তত্ত্ব উপেক্ষা করছেন। এটি আপনাকে একটি পরিপূর্ণরূপে বিতর্ক করতে সহায়তা করবে।

৭. সম্পূর্ণ বিতর্ক সমাপ্তি: সম্পূর্ণ বিতর্ক করার পরে, আপনার মন্তব্য সংক্ষেপে সমাপ্ত করুন। এটি একটি সংক্ষেপ করা প্রতিবেদন হয়ে যাবে যা মন্তব্যের পর করা হয়েছে, আপনার পক্ষটি সংক্ষেপে পুনরায় প্রদর্শন করবে, এবং একটি বিবৃতি প্রদান করবে যে আপনি বিতর্কটি নিষ্কর্ষ করতে পারেন।

এই নির্দেশাবলী অনুসরণ করে ভালো বিতর্ক শুরু করতে পারেন। মনে রাখবেন, বিতর্ক একটি সূক্ষ্ম কার্য। শিক্ষার্থীদের মধ্যে প্রতিদিন এটি উন্নতি করার জন্য অনুশীলন করা প্রয়োজন।


প্রথম বক্তা হিসেবে কিভাবে বিতর্ক শুরু করবেন


প্রথম বক্তা হিসেবে বিতর্ক শুরু করার জন্য নিম্নলিখিত নির্দেশাবলী অনুসরণ করতে পারেন:

১. উদ্বেগ ও সুবিধা সৃষ্টি করুন: একটি ভালো বিতর্ক শুরু করতে আপনার উদ্বেগ ও সুবিধা সৃষ্টি করুন। আপনার উদ্বেগ সৃষ্টি করতে পারে সাধারণত একটি বিষয়বস্তুর উপর আপনার নিজের মতামত বিশ্বাস করার জন্য এবং আপনার সুবিধা সৃষ্টি করতে পারে আপনি যদি বিষয়টি নিখুঁত বুঝতে পারেন।

২. বিবেচনা করুন: একটি বিষয়বস্তুর বিভিন্ন দিকগুলি বিবেচনা করুন। সামান্য সময় নিন আরও উদ্দেশ্যমূলক চিন্তা করার জন্য। বিষয়টি সম্পর্কে সুযোগ দিন আপনার মনে যা যায়, এবং বিষয়টির প্রাসঙ্গিক মেয়াদ, নীতি, তথ্য এবং অন্যান্য পার্যায়কে বিবেচনা করুন।

৩. মন্তব্যের প্রমাণ প্রদান করুন: আপনার মন্তব্যগুলি সমর্থনের জন্য প্রমাণ প্রদান করুন। এটি হতে পারে পরিসংখ্যান, গবেষণা ডেটা, সাক্ষ্য, উদাহরণ বা নীতি এর মতো বিভিন্ন ধরনের প্রমাণাদি ব্যবহার করে। আপনি যদি একটি কিছুর উপর ভিত্তি করে মন্তব্য করেন, তবে সেটি পর্যবেক্ষণ করা উচিত।

See also  Quora থেকে কিভাবে ইনকাম করে?

৪. উদ্ভাসিত প্রশ্ন করুন: বিপক্ষের মন্তব্য পর্যালোচনা করুন এবং মন্তব্যটির অসম্পূর্ণতার উপর ভিত্তি করে প্রশ্ন করুন। এটি আপনাকে বিষয়টি সম্পর্কে আরও ধর্মপ্রাণ করতে সহায়তা করবে এবং আপনার মতামতকে প্রমাণ করতে সাহায্য করবে।

৫. যথাযথ সময়ে কথা বলুন: প্রথম বক্তা হিসেবে ভালো বিতর্কের জন্য আপনার মতামত যথাযথ সময়ে প্রদান করুন। সংযোগ বিচ্ছিন্ন না করে আপনার মন্তব্যগুলি প্রদত্ত সময়ে এবং উচ্চমাধ্যমিক ভাষায় প্রদর্শন করুন।

উপরে উল্লিখিত নির্দেশাবলী মেনে চললে আপনি প্রথম বক্তা হিসেবে সঠিকভাবে বিতর্ক শুরু করতে পারবেন। মনে রাখবেন, এটি একটি অভ্যাস। প্রতিদিন অভ্যাস করে আপনি সেটিতে দক্ষ হতে পারবেন।


বিতর্ক প্রতিযোগিতার বিষয় সমূহ

বিতর্ক প্রতিযোগিতার বিষয় সমূহ বিতর্ক প্রতিযোগিতার জন্য বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হয়। এই প্রতিযোগিতায় সাধারণত তীব্রভাবে আলোচনা করা হয় এবং বিভিন্ন তত্ত্ব, নীতি এবং সামরিক বিষয়গুলির উপর ভিত্তি করে বিষয় নির্বাচন করা হয়। কিছু প্রমুখ বিষয় নিম্নলিখিত হতে পারে:


১. সামরিক বিষয়: সামরিক বিষয়গুলি বিতর্ক প্রতিযোগিতার জন্য সাধারণত উপযুক্ত হয়। উদাহরণস্বরূপ, যুদ্ধ, সমর, সৈন্য রাজনীতি এবং মহাবিপ্লবের বিষয়গুলি জনপ্রিয় হতে পারে।

২. রাষ্ট্রীয় নীতি: রাষ্ট্রীয় নীতি একটি জনপ্রিয় বিষয় হতে পারে, যেখানে প্রতিযোগিতার মাধ্যমে বিভিন্ন রাষ্ট্রীয় নীতি বিষয়ে আলোচনা করা হয়। এটি প্রতিযোগিতার দ্বারা নীতি প্রশ্ন, রাষ্ট্রীয় বিষয় বিশ্লেষণ এবং রাষ্ট্রীয় নীতি সম্পর্কে বিভিন্ন মতামতের প্রতিযোগিতা নিশ্চিত করে।

৩. সামাজিক ও নৈতিক বিষয়: সামাজিক ও নৈতিক বিষয়গুলি জনপ্রিয় এবং আকর্ষণীয় বিতর্ক প্রতিযোগিতার জন্য। এটি আদালতি বিষয়, মানবিক অধিকার, সামাজিক দায়িত্ব এবং নৈতিক মূল্য নির্ধারণের উপর ভিত্তি করে হতে পারে।

৪. বিজ্ঞান এবং প্রযুক্তি: বিজ্ঞান এবং প্রযুক্তি সম্পর্কে বিতর্ক প্রতিযোগিতা অন্য একটি জনপ্রিয় বিষয়। এটি বিজ্ঞানিক সমস্যা, প্রযুক্তির দায়িত্ব এবং পরিবর্তনের প্রশ্ন সম্মিলিত করে।

৫. সাহিত্যিক ও সাংস্কৃতিক বিষয়: সাহিত্যিক এবং সাংস্কৃতিক বিষয়গুলি বিতর্ক প্রতিযোগিতার জন্য আদর্শ হতে পারে। এটি সাহিত্যিক উপন্যাস, কবিতা, নাটক, সিনেমা বা সাংস্কৃতিক প্রশ্নের উপর ভিত্তি করে হতে পারে।

এটি শুধুমাত্র কিছু উদাহরণ, এখানে উল্লেখ করা হয়েছে। বিতর্ক প্রতিযোগিতার জন্য বিষয় নির্বাচনে ক্রেতার পছন্দ এবং আয়োজকদের মতামতের উপর ভিত্তি করা হয়।



আপনার জন্যঃ

বাংলাদেশের সবচেয়ে সেরা ১০ টি সংবাদ পত্রিকা ২০২৩ – জনপ্রিয় অনলাইন পত্রিকা


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *